Pre-loader logo

বিনা মূল্যে চিকিৎসাসেবা পেল এলাকাবাসী

বিনা মূল্যে চিকিৎসাসেবা পেল এলাকাবাসী

একাদশ শ্রেণির ছাত্রী চৈতি অনেক দিন ধরেই দূরের কিছু পরিষ্কার দেখতে পাচ্ছিল না। ব্যাপারটি তেমনভাবে পাত্তাও দেয়নি। সমস্যাটি বাড়ছিল দিন দিন। বলি বলি করে বাবা-মাকেও বলা হয়ে ওঠেনি। ফলে ডাক্তারও দেখানো হয়নি। একদিন নোটিশ এলো ওদের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে আসবে বসুন্ধরা চক্ষু হাসপাতালের একটি বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক টিম। বিনা মূল্যে চক্ষু পরীক্ষা করবে এবং প্রয়োজনীয় পরামর্শ ও চিকিৎসাও দেবে। সেই থেকে ছিল অপেক্ষা। অবশেষে গতকাল শনিবার নিজ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান রাজধানীর কালাচাঁদপুর স্কুল অ্যান্ড কলেজে এলো বসুন্ধরা আই হসপিটাল অ্যান্ড রিসার্চ সেন্টারের ফ্রি মেডিক্যাল টিম। তারা চোখ পরীক্ষা করল চৈতিসহ স্কুলের দুই শ শিক্ষার্থীর। দিল প্রয়োজনীয় ব্যবস্থাপত্র। শুধু স্কুলেরই নয়, কালাচাঁদপুর এলাকার শতাধিক বিভিন্ন বয়সী মানুষও এই ক্যাম্প থেকে পেয়েছে বিনা মূল্যে চিকিৎসাসেবা।
চৈতি বলল, ‘স্কুলে এমন চক্ষুসেবা কার্যক্রম আমাদের জন্য কত বড় একটা উপকার বয়ে এনেছে তা বলে বোঝানো যাবে না। এখানে এ সুযোগ না পেলে আমি তো আমার সমস্যার সমাধানই পেতাম না।’
মেডিক্যাল টিমে থাকা বসুন্ধরা চক্ষু হাসপাতালের চিকিৎসক এম এ খালেক কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘এখানে এসে ছাত্রছাত্রীদের চক্ষু পরীক্ষা করে দেখতে পাচ্ছি বেশির ভাগই ক্ষীণদৃষ্টিসম্পন্ন। অথচ তারা বিষয়টি আগে বুঝতেই পারেনি। এ ছাড়া অনেকেরই অ্যালার্জির সমস্যা আছে। কারো কারো আরো কিছু জটিল সমস্যাও পেয়েছি। আমরা তাদের আমাদের হাসপাতালে আসতে বলেছি। সেখানে আরো উন্নত পরীক্ষার পর প্রয়োজনীয় সব রকম চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হবে।’ গতকাল সকাল ৯টায় এ চক্ষু ক্যাম্পের উদ্বোধন করেন বসুন্ধরা আই হসপিটাল অ্যান্ড রিসার্চ সেন্টারের পরিচালক অধ্যাপক ডা. মো. সালেহ আহম্মেদ।
ডা. সালেহ আহম্মেদ বলেন, ‘বসুন্ধরা আই হসপিটালের মাধ্যমে আমরা সারা দেশে গরিব ও দুস্থ মানুষের চক্ষু চিকিৎসার উদ্যোগ নিয়েছি। যেসব মানুষ হাসপাতালে গিয়ে সেবা নিতে পারে না আমরা নিজেদের উদ্যোগেই তাদের কাছে ছুটে যাচ্ছি চিকিৎসাসেবা দিতে। এমনকি তাদের যাওয়া-আসা, থাকা-খাওয়ার সব ব্যবস্থাই আমরা করছি। পাশাপাশি স্কুল-কলেজের ছাত্রছাত্রীদের জন্য বিশেষভাবে চক্ষুসেবা দেওয়া হচ্ছে। মেডিক্যাল ক্যাম্পের মাধ্যমে যাদের উন্নত চিকিৎসা দরকার আমরা তাদেরও আমাদের হাসপাতালে এনে বিনা মূল্যে সব চিকিৎসা দিচ্ছি।’

Copyright © 2021 Sayem Sobhan Anvir. All Rights Reserved.