Pre-loader logo

উচ্ছ্বাসে, উৎসাহে কালের কণ্ঠের যুগপূর্তি পালন

উচ্ছ্বাসে, উৎসাহে কালের কণ্ঠের যুগপূর্তি পালন

করোনা মহামারির কারণে এবার আয়োজন ছিল সীমিত। স্বাস্থ্যবিধি মেনে অনেকটা ঘরোয়াভাবে জন্মদিন উদযাপন করেছে কালের কণ্ঠ। গতকাল kalerkanthoসোমবার ছিল কালের কণ্ঠের যুগপূর্তি। সেই সুবাদে ১৩ বছরে পা রাখল কালের কণ্ঠ। সে জন্যই কি না, অফিসজুড়ে কর্মীদের মধ্যে ছিল কৈশোরের চাঞ্চল্য, উচ্ছ্বাস।

দিনভর কালের কণ্ঠ শুভেচ্ছায় সিক্ত হয়েছে। শুভানুধ্যায়ীরা ফুল-কেক নিয়ে কালের কণ্ঠ ভবনে এসে জন্মদিনকে আন্তরিকতায় ভরিয়ে দিয়েছেন। বিশিষ্টজনরা শুভেচ্ছা বার্তা পাঠিয়েছেন।

এর আগে গতকাল সকাল সাড়ে ১১টায় ইস্ট ওয়েস্ট মিডিয়া ভবনের কনফারেন্স কক্ষে কেক কেটে যুগপূর্তি অনুষ্ঠানের সূচনা করেন বসুন্ধরা গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সায়েম সোবহান আনভীর। তিনি কালের কণ্ঠ পরিবারের সদস্য এবং পাঠক-শুভানুধ্যায়ীদের শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানান।

এ সময় ইস্ট ওয়েস্ট মিডিয়া গ্রুপের পরিচালক কথাসাহিত্যিক ইমদাদুল হক মিলন, কালের কণ্ঠের সম্পাদক শাহেদ মুহাম্মদ আলী, প্রকাশক ময়নাল হোসেন চৌধুরী, বাংলাদেশ প্রতিদিনের সম্পাদক নঈম নিজাম, ডেইলি সানের সম্পাদক এনামুল হক চৌধুরী, টেলিভিশন চ্যানেল নিউজটোয়েন্টিফোরের নির্বাহী সম্পাদক রাহুল রাহা, বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর ডটকমের সম্পাদক জুয়েল মাজহারসহ কালের কণ্ঠের সব বিভাগের কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

কেক কাটা, মিষ্টি মুখ করা, ছবি তোলা আর সবাই একসঙ্গে দুপুরের খাবার খাওয়ার মধ্য দিয়ে মিলনমেলায় পরিণত হয় কালের কণ্ঠ ভবন। ঢাকায় কেন্দ্রীয় আয়োজনের পাশাপাশি জেলা পর্যায়ে কালের কণ্ঠের যুগপূর্তি পালন করা হয়। স্থানীয় সুধীজনদের উপস্থিতি কালের কণ্ঠের এই আয়োজনকে অর্থবহ করে তোলে।

অভ্যাগতদের কথায় উঠে আসে, শুরু থেকেই কালের কণ্ঠ মুক্তিযুদ্ধের আদর্শকে বহন করে চলেছে। অসাম্প্রদায়িকতা, গণতান্ত্রিক মূল্যবোধ ও মুক্তবুদ্ধির চর্চার মধ্য দিয়ে ১২ বছর ধরে কালের কণ্ঠ তার স্বকীয় বৈশিষ্ট্য বজায় রেখেছে।

যুগফূর্তি উপলক্ষে পাঁচটি বিষয়ে কালের কণ্ঠ প্রকাশ করেছে বিশেষ ক্রোড়পত্র। আগামী শুক্রবার পর্যন্ত পাঁচ দিন মূল পত্রিকার সঙ্গে প্রতিটি ১৬ পৃষ্ঠার এই ক্রোড়পত্র প্রকাশিত হবে।

প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে জেলা পর্যায়ে শীতার্তদের মাঝে কম্বল বিতরণ করে কালের কণ্ঠ শুভসংঘ।

যাঁরা শুভেচ্ছা জানিয়েছে : কালের কণ্ঠের যুগপূর্তিতে বিভিন্ন রাজনৈতিক দল শুভেচ্ছা জানিয়েছে। জাতীয় পার্টিসহ কয়েকটি দলের পক্ষে কালের কণ্ঠ অফিসে এসে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানানো হয়। বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব প্রফেশনালস, সোনারগাঁও ইউনিভাির্সিটি, প্রাইভেট ইউনিভার্সিটি পাবলিক রিলেশন অফিসার্স অ্যাসোসিয়েশন শুভেচ্ছা জানায়।

বসুন্ধরা গ্রুপ, প্রাণ কম্পানি লিমিটেড, নতুন ধরা এসেটস লিমিটেড, ফুডপান্ডা, নগদ মোবাইল সেবা, বিক্রয় ডট কম, রানার মোটর, শাওমি মোবাইল কম্পানি, মিনিস্টার কম্পানি, ইসলামী ব্যাংক, ওয়ালটন, মাস্টারহেড পিআর, অপ্পো মোবাইল, আর আর ইম্পেরিয়াল, আশা ইউনিভার্সিটি, পুষ্টি গ্রুপ, সোশ্যাল ইসলামী ব্যাংক, মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংক, বিকাশ, বাংলাদেশ পরিবহন মালিক সমিতি, বেঙ্গল কমার্শিয়াল ব্যাংক, আমিন মোহাম্মদ গ্রুপ, বি প্রোপার্টি, ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের পক্ষ থেকে কালের কণ্ঠের কর্মীদের শুভেচ্ছা জানানো হয়।

শুভেচ্ছা জানায় ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়ন (ডিইউজে), ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি (ডিআরইউ), বাংলাদেশ ক্রাইম রিপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশন (ক্রাব), টি স্পোর্টস, চ্যানেল আই, বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর ডটকম ও দৈনিক যুগান্তরের পক্ষ থেকেও শুভেচ্ছা জানানো হয়।

ঢাকা সংবাদপত্র হকার্স সমবায় সমিতি, পত্রপত্রিকা বিতরণকারী সমবায় সমিতি ও সংবাদপত্র হকার্স কল্যাণ বহুমুখী সমবায় সমিতিও শুভেচ্ছা জানায়।

জেলায় জেলায় যুগপূর্তি : ঢাকার প্রধান কার্যালয়ের পাশাপাশি বিভাগীয় অফিস ও জেলা পর্যায়ে কালের কণ্ঠের যুগপূর্তি পালন করা হয়। জেলা ও বিভাগীয় অফিসে বিশিষ্টজনরা উপস্থিত হয়ে আয়োজনে ভিন্ন মাত্রা যোগ করেন।

ঝালকাঠি প্রেস ক্লাবে কালের কণ্ঠের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী অনুষ্ঠানে যুক্ত হয়ে জেলা প্রশাসক মো. জোহর আলী বলেন, পত্রিকার চাহিদা এখনো মানুষের মধ্যে আছে। কালের কণ্ঠ শুরু থেকেই মানুষকে সত্য সংবাদ জানিয়ে পাঠকের চাহিদা পূরণ করে আসছে।

আলোচনাসভা, কেক কাটার পাশাপাশি রাজশাহী অফিসে পিঠা উৎসবের আয়োজন করা হয়।

বাগেরহাটে কালের কণ্ঠের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর আলোচনায় অংশ নেন শিক্ষাবিদ অধ্যাপক চৌধুরী আব্দুর রব। ফরিদপুরে অনুষ্ঠান হয় প্রেস ক্লাবে। নওগাঁ শহরে শুভসংঘের আয়োজনে উপস্থিত ছিলেন অধ্যাপক শরিফুল ইসলাম খান। নড়াইলের অনুষ্ঠানে ছিলেন পৌরসভার মেয়র আনজুমান আরা। লক্ষ্মীপুরে কেক কেটে কালের কণ্ঠের যুগপূর্তি উদযাপনে অংশ নেন শুভসংঘের জেলা সভাপতি অধ্যাপক কার্তিক সেনগুপ্ত। মেহেরপুরের অনুষ্ঠানে ছিলেন মেহেরপুর সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ শফিউল ইসলাম সরকার।

মাগুরায় কালের কণ্ঠের যুগপূর্তিকে কেন্দ্র করে শুভসংঘের উদ্যোগে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মাননা জানানো হয়। কিশোরগঞ্জে বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ ও সাংবাদিকদের সঙ্গে নিয়ে কেক কাটা হয়। মানিকগঞ্জে হয় আলোচনাসভা। গাজীপুরে অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন শিক্ষাবিদ অধ্যাপক এম এ বারী। গাইবান্ধায় যুগপূর্তির অনুষ্ঠানে মুক্তিযুদ্ধ গবেষক অধ্যক্ষ জহুরুল কাইয়ুম বলেন, তারুণ্যকে উজ্জীবিত করে দেশ ও জাতি গঠনে কালের কণ্ঠ আরো ভূমিকা রাখবে বলে আশা তাঁর।

পঞ্চগড়ের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে কেক কেটে যুগপূর্তি পালন করা হয়। যশোরের আলোচনাসভায় কথা বলেন সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি সুকুমার দাস। শেরপুরে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর কেক কাটেন বীর মুক্তিযোদ্ধা আবু সালেহ মো. নুরুল ইসলাম হিরো।

নরসিংদীতে অরবিট মিলনায়তনে বর্ণাঢ্য আয়োজনে যুগপূর্তি পালন করা হয়। কুষ্টিয়ায় শীতবস্ত্র বিতরণ, মাস্ক বিতরণ, পরিচ্ছন্নতা অভিযান ও কেক কেটে কালের কণ্ঠের যুগপূর্তি উদযাপন করা হয়েছে। এতে জেলার বিশিষ্টজনরা উপস্থিত ছিলেন।

নীলফামারীতে সুধি সমাবেশের মধ্য দিয়ে পালিত হয়েছে দৈনিক কালের কণ্ঠের যুগপূর্তি।

হবিগঞ্জ, মৌলভীবাজার, সাতক্ষীরা, ঝিনাইদহ, কুলাউড়া ও জয়পুরহাটে নানা আয়োজনে কালের কণ্ঠের এই যুগপূর্তি উদযাপন করেছেন শুভসংঘের জেলা কমিটির বন্ধুরা। রাজবাড়ীতে যুগপূর্তি উপলক্ষে কেক কাটা, আলোচনাসভা, দেশ সেরা প্রাথমিক শিক্ষককে সম্মাননা এবং দরিদ্র ও মেধাবী শিক্ষার্থীদের মাঝে শিক্ষা উপকরণ বিতরণ করা হয়।

Copyright © 2022 Sayem Sobhan Anvir. All Rights Reserved.